ইসরাইলের বিপক্ষে ভোট দেয়নি ভারত

india and israel

গত বছর গাজায় ইসরাইলের অভিযানের ওপর জাতিসংঘ তদন্ত কমিশনের প্রতিবেদন গ্রহণের জন্য শুক্রবার জাতিসংঘ মানবাধিকার সংস্থা (ইউএনএইচসিআর) ভোটাভুটির আয়োজন করে। জাতিসংঘ তদন্ত কমিশনের প্রতিবেদনে ইসরাইল ও ফিলিস্তিনি যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের মুখোমুখি করার দাবি জানানো হয় সেই ভোটদানে বিরত থাকে ভারত।

ভারতের এ বিরত থাকার সিদ্ধান্তকে যখন ইসরাইলের গণমাধ্যমে ‘দেশটির জন্য এক অনন্য অর্জন’ বলে উল্লেখ করছে, আর নয়াদিল্লীর পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ‘ফিলিস্তিনকে সহযোগিতার ইস্যুতে ভারতের দীর্ঘদিনের অবস্থানের কোনো পরিবর্তন হয়নি’।

বর্তমান এনডিএ সরকার জনগণকে বোঝাচ্ছে যে প্রধানমন্ত্রী মোদীর অধীনে ভারতের পশ্চিম এশিয়া নীতিতে কোন পরিবর্তন আসেনি। ২০১৪ সালে ইসরাইলের গাজা অভিযানের তদন্ত চেয়ে ইউএনএইচসিআর’র অপর একটি প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেয়ার পর সমালোচনার মুখে পড়ে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার।

তবে, এবার সেই সমালোচনার পথ বন্ধ করে দিল বিজেপির জোট সরকার। ভোট দেওয়া থেকে ‘বিরত’ থাকার যুক্তি দিয়ে ভারতের তরফে বলা হয়েছে, প্রতিবেদনে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) উল্লেখ রয়েছে । আর ভারত আইসিসিতে স্বাক্ষর করা দেশ নয়।

মোদী চলতি বছরের শেষ দিকে বা আগামী বছরের শুরুতে ইসরাইল সফর করবেন। ১৯৯২ সালে দু’দেশের মধ্যে পূর্ণ কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপিত হওয়ার পর প্রথমবারের মতো কোনো ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তিনি এ সফর করবেন।

জাতিসংঘ তদন্ত কমিশনের প্রতিবেদনটি উত্থাপিত হলে ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত বেশ কিছু রাষ্ট্রসহ মোট ৪১টি দেশ এ প্রতিবেদন গ্রহণের জন্য ভোট দেয়। তবে ভারতসহ পাঁচটি দেশ ভোট দেয়া থেকে বিরত থাকে। বিরত থাকা বাকি চারটি দেশ হলো- কেনিয়া, ইথিওপিয়া, প্যারাগুয়ে ও ম্যাসেডনিয়া।

তদন্ত প্রতিবেদন অনুমোদনের বিপক্ষে ভোট দেয় কেবল ইসরাইলের ঘনিষ্ঠ মিত্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

Leave a Reply