কঠোর হাতে সিরিয়ার যুদ্ধবিরতি নস্যাত্কারীদের দমন করা হবে: রাশিয়া

সিরিয়ায় প্রাথমিকভাবে ২১ মার্চ পর্যন্ত যুদ্ধবিরতি চুক্তি কার্যকর থাকার কথা ছিল । আমেরিকা ও রাশিয়ার মধ্যস্থতায় সক্ষরিত চুক্তি মেনে চলতে সিরিয়ার বৈধ প্রেসিডেন্ট বাসার আল আসাদ এবং সিরিয়ার বেশিরভাগ গেরিলা গোষ্ঠী প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ছিল । কিন্তু এরইমধ্যে বহুবার চুক্তি লঙ্ঘনের নজির পেয়ে অভিযোগ করেছে রাশিয়া।

syr

সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি নস্যাত্কারীদের কঠোর হস্তে প্রতিরোধ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে রাশিয়া। আজ রাশিয়ার জেনারেল স্টাফ সের্গেই রুদস্কয় মূলত আমেরিকাকে সতর্ক করে এক বিবৃতিতে এ মনোভাব ব্যক্ত করেছে।

সের্গেই রুদস্কয় বলেছে,

‘যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের বিষয়ে পর্যবেক্ষণের জন্য রাশিয়ার দেয়া রিপোর্ট অনুসারে আমেরিকা যদি কোনো প্রতিক্রিয়া না দেখায়, তাহলে ২২ মার্চ থেকে মস্কো চুক্তির ধারা মেনে একতরফা পাল্টা ব্যবস্থা নিতে শুরু করবে রাশিয়া’।

রাশিয়ার দেয়া প্রস্তাবে যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের বিষয়ে আলোচনা করার কথা বলা হয়েছে ।

সিরিয়ায় প্রাথমিকভাবে ২১ মার্চ পর্যন্ত যুদ্ধবিরতি চুক্তি কার্যকর থাকার কথা ছিল । আমেরিকা ও রাশিয়ার মধ্যস্থতায় সক্ষরিত চুক্তি মেনে চলতে সিরিয়ার বৈধ প্রেসিডেন্ট বাসার আল আসাদ এবং সিরিয়ার বেশিরভাগ গেরিলা গোষ্ঠী প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ছিল । কিন্তু এরইমধ্যে বহুবার চুক্তি লঙ্ঘনের নজির পেয়ে অভিযোগ করেছে রাশিয়া।

উল্লেখ্য , যুদ্ধবিরতি চুক্তি বাস্তবায়নের বিষয়টি পর্যবেক্ষণের জন্য রাশিয়া সিরিয়ার লাতাকিয়ায় একটি পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেছে। ২৭ ফেব্রুয়ারি যুদ্ধবিরতি কার্যকর হওয়ার পর থেকে এ কেন্দ্র নিয়মিত যুদ্ধবিরতি চুক্তি লঙ্ঘনের ঘটনা গুলো লিপিবদ্ধ করে চলেছে ।









Leave a Reply