সিরিয়ায় অভিযান চালাতে আমেরিকার সাথে পরামর্শ করছে সৌদি আরব

সৌদি আরব সিরিয়ায় আইএস নির্মূলের মলাট লাগিয়ে ‘জরুরি স্থল অভিযান’ চালানোর বিষয়ে খুবই সরব হয়েছে । কিন্তু এরাই এতদিন এসব উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোকে সহায়তা দিয়ে এসেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। সিরিয়ার বৈধ প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদকে ক্ষমতাচ্যুত করবে বলেও ঘোষণা দিয়েছে সৌদি আরব ও তুরস্ক।
SAUDI-ARABIA-TANK
সিরিয়ায় সামরিক অভিযান চালাতে আমেরিকার সঙ্গে পরামর্শে রত সৌদি আরব। সৌদি প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সামরিক উপদেষ্টা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহমাদ আসেরি গতকাল (সোমবার) জানিয়েছে দু সপ্তাহ আগে বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে আন্তর্জাতিক জোটভুক্ত ৬৫ দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে সৌদি প্রতিরক্ষামন্ত্রী মোহাম্মাদ বিন সালমান সিরিয়ায় সামরিক হামলা জোরদারের বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছে।

আহমাদ আসেরি বলেছে ,

‘ সিরিয়ার সামরিক অভিযান নিয়ে রাজনৈতিক পর্যায়ে আলোচনা হয়ে গিয়েছে এখন শুধু সামরিক পর্যায়ে আলোচনা সেরে ফেলতে হবে ‘।

আসেরির দেওয়া বকতব্যানুসারে তুরস্কের ইনজারলিক বিমানঘাঁটিতে পৌঁছানো জঙ্গিবিমানের সাহায্যে সিরিয়ার ওপর হামলা চালানোর জন্য সৌদি আরব এখন প্রস্তুত। তবে অভিযান চালাতে কোথায় ,কিভাবে , কি সংখ্যক সেনা পাঠাতে হবে- এসব বিষয়ে আলোচনা এখনো বাকি আছে। অর্থাৎ দেখা যাচ্ছে আমেরিকার সাথে যোগসাজেশে সৌদির সমপর্যায়ে তুরস্ক রয়েছে।

উল্লেখ্য আমেরিকার নেতৃত্বাধীন ৬৫ জাতির আন্তর্জাতিক জোট ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে সিরিয়ায় উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসআইএস এর বিরুদ্ধে হামলা চালানোর দাবি করে আসছে, এ জোটে সৌদি আরবও রয়েছে, যদিও এ পর্যন্ত আইএসআইএস এর বিরুদ্ধে কার্যকর কোনো হামলার নজির মেলেনি। আইএসআইএস দমনের জোটভুক্ত হয়েও সৌদি আরব কেন আবার আলাদা করে সিরিয়ায় হামলা করার অপতত্পরতা দেখাচ্ছে তা নিয়ে এখন আন্তর্জাতিক মহলে উতকন্ঠার সীমা নেই। কারণ সৌদি এমন একটা সময় এই খবর ফাঁস করেছে যখন সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি চলছে।

সম্প্রতি আমরা দেখেছি, সৌদি আরব সিরিয়ায় আইএস নির্মূলের মলাট লাগিয়ে ‘জরুরি স্থল অভিযান’ চালানোর বিষয়ে খুবই সরব হয়েছে। কিন্তু এরাই এতদিন এসব উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোকে সহায়তা দিয়ে এসেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। সিরিয়ার বৈধ প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদকে ক্ষমতাচ্যুত করবে বলেও ঘোষণা দিয়েছে সৌদি আরব ও তুরস্ক।









Leave a Reply