সিরিয়ায় সৌদি সেনা পাঠালে তা যুদ্ধের ঘোষণা বলে বিবেচিত হবে: রাশিয়া

আমেরিকার কথিত ইসলামিক স্টেইট বিরোধী জোটের অন্যতম শরিক সৌদি আরবের সেনা পাঠানোর প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়েছে আমেরিকার প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাশ্টন কার্টার।
22
গতকাল শুক্রবার, রাশিয়ার সংসদের নিম্নকক্ষ দুমার প্রধান পাভেল ক্রাশেনিননিকোভ বলেছে, রাশিয়া মনে করে বিনা অনুমতিতে সিরিয়ায় সৌদি সেনা পাঠানো হলে তা হবে দামেস্কের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণার শামিল।

দুমার প্রধান আরো বলেছে, সিরিয়ায় সেনা পাঠাতে হলে দামেস্কের কাছ থেকে আনুষ্ঠানিক সম্মতি নিতে হবে কিংবা সিরিয়ার পক্ষ থেকে আমন্ত্রণ জানাতে হবে, তা না হলে সৌদি সেনা পাঠানোর বিষয়টিকে যুদ্ধ ঘোষণার শামিল বলে গণ্য করা হবে। আন্তর্জাতিক আইনে এটি বলা হয়েছে বলেও সে উল্লেখ করেছে।

ক্রাশেনিননিকভ বলেছে, সিরিয়ায় স্থল অভিযানের প্রতিশ্রুতি ঘোষণা করে রিয়াদ এখন যুদ্ধ ঘোষণা না করেই সার্বভৌম একটি দেশে সেনা পাঠাতে চাচ্ছে।

অবশ্য সৌদি আরব আমেরিকার নেতৃত্বে ইসলামিক স্টেইট বিরোধী জোটের অন্যতম শরিক যারা সিরিয়া এবং ইরাকে বোমা হামলা করে যাচ্ছে।

প্রসংগত, গত বৃহস্পতিবার, সৌদি আরব ঘোষণা করেছে, স্থল অভিযানের জন্য সিরিয়ায় সেনা পাঠাতে দেশটি প্রস্তুত। সেই দিনে, সৌদি প্রতিরক্ষামন্ত্রীর উপদেষ্টা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহমাদ আনসারি সৌদি মালিকানাধীন আল-আরাবিয়া টেলিভিশন চ্যানেলকে সৌদি আরবের সিরিয়ায় স্থল সেনা পাঠানোর আকাংখার কথা ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেছে যে, সিরিয়ায় সন্ত্রাস-বিরোধী অভিযানে জড়িত আমেরিকার নেতৃত্বাধীন জোট যদি স্থল অভিযানের সিদ্ধান্ত নেয় তবে তাতে সেনা পাঠাতে সৌদি আরব প্রস্তুত রয়েছে।

উল্লেখ্য, আমেরিকার কথিত ইসলামিক স্টেইট বিরোধী জোটের অন্যতম শরিক সৌদি আরবের এ প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়েছে আমেরিকার প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাশ্টন কার্টার।









Leave a Reply